অবমুক্ত হলো দখল করে লাগানো কেশবপুর শিশু একাডেমির সাইনবোর্ড

7

কেশবপুর প্রতিনিধি

যশোরের কেশবপুরে ভবন দখল করে শিশু একাডেমির সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় বিভিন্ন পত্রপত্রিকা ও অনলাইনে ” কেশবপুরে সমবায় সমিতির ভবন দখল করে শিশু একাডেমীর সাইনবোর্ড প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হলে নড়েচড়ে বসে কর্তৃপক্ষ। কেশবপুর উপজেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা বিমল কুন্ডু অনেক দৌড় ঝাপ করে ও শেষ রক্ষা করতে না পেরে অবশেষে শনিবার সন্ধ্যায় দখল করে লাগানো কেশবপুর শিশু একাডেমির সাইনবোর্ড খুলে নিয়েছে গেছে শিশু একাডেমীর কতৃপক্ষ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান সন্ধ্যার সময় খুলে নিয়ে যাওয়া হয় সাইনবোর্ডটি। জানা গেছে, শহরের পাবলিক ময়দান সংলগ্ন পুকুরের পাশে এসএ দাগ নং-৩৭ এর ভেতর ১৪ শতক জমি ছিল। ২০০৬ সালের ৩ জুলাই ওই জমি পৌরসভার সাথে জামাল উদ্দীন সানা এওয়াজমূলে দলিল করে নেয়। ওই জমিতে বর্তমান পৌর ভবন রয়েছে। আর পৌরসভার জমি কেশবপুর সদর ইউনিয়ন সমবায় সমিতি লিমিটেডের দখলে রয়েছে। যা নিয়ে মামলা চলমান।

২টি কক্ষে কেশবপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয় ছিল। ২০১৩ সালে সরকার ওই জমি অবমুক্তি করে দেয়। যার কেস নং- ২৬৯৯। যা সরকারী খ তফশীলভূক্ত জমি। এরই সূত্র ধরে কেশবপুরের তৎকালিন সহকারি কমিশনার (ভূমি) আবু সায়েদ মোমেন মজুমদার কেশবপুর সদর ইউনিয়ন সমবায় সমিতি লিমিটেডের নামে নামপত্তন করে দেয়। বাংলাদেশ শিশু একাডেমি কেশবপুর শাখার পক্ষ থেকে ওই বিরোধপূর্ণ জমিতে রোববার সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে দেয়। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক ক্ষোভ বিরাজ করেছে।

এ ব্যাপারে কেশবপুর উপজেলা শিশু একাডেমির কর্মকর্তা বিমল কুমার কুন্ডু সাংবাদিকদের বলেন উদ্ধতন কতৃপক্ষের নির্দেশে সাইনবোর্ড দিয়েছি এবং উদ্ধতন কতৃপক্ষের নির্দেশে সাইনবোর্ড খুলে নেওয়া হয়েছে।

SHARE

LEAVE A REPLY